Sunday, February 19, 2012

হে উপমানব, সুপথে এসো



তুমি প্রতি মুহুর্তে মাপো তোমার অস্তিত্ব,
দেখো নিজের হাড্ডির দিকে_
এখনো টিকে আছো তো, দুর্বা গজিয়েছে কী না হাড়ে?
হে উপমানব, নিস্ফল হচ্ছে কী তোমার সমস্ত কোলাহল,
মহাবিশ্বের উপকুলে সাবমেরিন নিয়ে যাত্রা তুমি 
কোনোদিনই করতে পারবে না,
জানো তো আমি ঈশ্বরের চেয়েও মহাপরাক্রমশালি

সাহসি তুমি নিঃসন্দেহে, ষাঁড়ের মতো বরাবর
ঘোঁত ঘোঁত করো আর আবোল তাবোল বকো,
তুমি খোঁজো এক মুঠ মুথা ঘাস,
এক ছটাক চিটাগুড় তামাকের জন্যে, কিংবা মায়ের শাড়ি অথবা মৃত্যু;
ওপথে হেঁটো না তুমি,
অজ্ঞতার পুরস্কার নিতে এসো প্রচলিত উন্নয়নের পথে,
প্রতি বিমানবন্দরে তোমার জন্য প্রতীক্ষায় আছে লাল লাল গালিচা গোলাপ
তামাম জগত তোমার পদতলে দুলবে অপার্থিব দোলনার মতো,
পারলে শব্দের সাথে ইজম যোগ করে কয়েকখানা বই লেখো,
তোমাকেই বানানো হবে ধরণিশ্রেষ্ঠ দার্শনিক, তোমার নিচে থাকবে সব মহাবিশ্ব,
তুমি সব উপরে,
ভাবো রো কিছুদিন,
বদলাও পথ আর গ্রহণ করো বহুমূল্য স্বর্ণালংকার, সভ্যতার ক্ষমতা;
রঙিন আলোর ঘরে পাবে কামনাবহুল সার্থকতা

আর বেশি বেশি বেঁকেছো তো সোজা
মাথা হতে ধড় করে দেব আলাদা,
সেদ্ধ করবো চুল্লির ফুটন্ত পানিতে,
মগজ বের করে মুড়িঘন্ট রান্না হবে,
ভুলে গেছো অহিঙসা রম ধর্ম

বেশ তো আরামে রেখেছি তোমাকে;
দিয়েছি মা পুত্র পরিবার বালিশ তোষক কাঁথা, মুড়িমাখা সরষের তেল,
দুপায়ে চামের স্যান্ডেল,
প্রতিদিন শোবার আগে এক ঢোক পিল;
যদি চাও দিতে পারি উপপত্নি সারি,
খেলবে তীব্র সাদা আলোয় টেবিল টেনিস
তবু কেন ফাও ফাও চেঁচাঁমেঁচি ভাঙনের গান,
চুপ মেরে বসে আকোঁ শব্দকুন্ডলি_ আমার চরম আদেশ?
দশদিকের সব গন্ডারের ডাক মন দিয়ে শোনো,
সব ইন্দ্রিয় সুচতুর রাখো,
ভুলে যেয়ো না সব মতবাদই খুব ভালো,
মধ্যযুগের ভুতও পায় আমার কাছে চকচকে রূপ,
তথ্যই সকল ত্রাতা, জ্ঞান এখন পান্তাজলে ডুবে মরবে

দেখো গৃহের কুকুর কত প্রভুভক্ত;
গবেষণাগার খোলো প্রভুভক্তির ব্যাপারে, তুমিও হও কুকুরের মতো,
নিজের হাড্ডি বের হবে না, প্রতিদিন খেতে পাবে কাচ্চি বিরিয়ানি,
জিভ দিয়ে ঝরবে না শ্রান্তির লালা

প্রশ্ন করো না কোনো, দুর্মতিকে চাপা দাও হৃদয়ের বাক্সে,
আমার হাতখানা রাখো তোমাদের হাতের াশে
দেখো তুমি আমি শক্র মিত্র উড়ে যাচ্ছি একসাথে নীল নীলাকাশে

প্রচলিত কিছুই সহজে ভাঙবে না;_ ভূঁড়ির চর্বি, চিতার আগুন,
ছায়ামুর্তির বাস্তবতা, অন্ধকারের শক্তি;

পৃথিবী একদিন অন্ধকারে ডুবে যাবে আমার স্বপ্ন সাধনা

No comments:

Post a Comment

জনপ্রিয় দশটি লেখা, গত সাত দিনের

Recommended