Monday, April 02, 2012

রাঙা মানিকজোড় বাংলাদেশের অনিয়মিত মহাবিপন্ন পাখি



Photo: Kiron Khan, Bangladesh.


বৈজ্ঞানিক নাম/Scientific Name: Mycteria leucocephala (Penant, 1769)
সমনাম: Tantalus Leucocephalus (Penant, 1769) 
বাংলা নাম: রাঙা মানিকজোড়, সোনাজঙ্ঘা,
ইংরেজি নাম/Common Name: Painted Stork.

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
বিভাগ: Chordata
শ্রেণী: Aves
পরিবার/Family: Ciconiidae.
গণ/Genus: Mycteria Linnaeus, 1758,
প্রজাতি/Species: Mycteria leucocephala (Penant, 1769).
ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকাMycteria গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে রয়েছে মোট ৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে রাঙা মানিকজোড় বা সোনাজংগা।
বর্ণনা: রাঙা মানিকজোড় লাল ঠোঁট সাদা দেহের বিশাল জলচর পাখি। এর দৈর্ঘ্য ৯৩ সে.মি., ওজন ৩ কেজি, ডানা ৫০ সে.মি., ঠোঁট ২৬.৫ সে.মি., পা ২৪.৫ সে.মি., লেজ ১৬ সে.মি.। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির মুখের পালকহীন কমলা-হলুদ চামড়া প্রজনন ঋতুতে লাল হয়; ঘাড় ও দেহের পিছনের অংশ সাদা; দেহের নিচের দিক সাদা, বুকে আড়াআড়ি কালো ডোরা; ডানার প্রান্ত ও মধ্য-পালক কালো এবং ডানার কালো পালক-ঢাকনিতে সাদা ডোরা; লেজের কালচে পালকে পাটকিলে দাগ; চোখ খড়-হলুদ; লম্বা ঠোঁটের গোড়া কমলা-হলুদ, নিচুমুখে বাঁকানো আগা হালকা খয়েরি; পা ও পায়ের পাতা মেটে-বাদামি থেকে প্রায় লাল। ছেলে ও মেয়ে পাখির চেহারা অভিন্ন। অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখি মলিন সাদা, মাথা, ঘাড়, ডানার ভেতরের পালক-ঢাকনি বাদামি।
স্বভাব: রাঙা মানিকজোড় নদীর পাড়, জলমগ্ন মাঠ, হ্রদ, জোয়ার ভাটার কাদাচর, ও লবণ চাষের জমিতে বিচরণ করে, সচরাচর জোড়ায় কিংবা ছোট দলে থাকে। অগভির পানিতে হেঁটে ও ঠোঁট খুলে কাদায় ঢুকিয়ে এরা খাবার খায়; খাদ্যতালিকায় রয়েছে মাছ, ব্যাঙ, চিংড়ি জাতীয় প্রাণি ও  পোকা। পানির ধারেই প্রায় এক পায়ে দাঁড়িয়ে এরা বিশ্রাম করে; প্রজনন ঋতু ছাড়া সম্পূর্ণ নীরব থাকে; কিন্তু পুর্ব রাগে এরা নিচু স্বরে গোঙানোর শব্দ করে ডাকে। জুলাই-অক্টোবর মাসে প্রজননকালে ভারতে পানিতে দাঁড়ানো গাছে ডালপালা, পাতা, খড় ও নল দিয়ে বড় মাচার মতো বাসা বানিয়ে ডিম পাড়ে। ডিমগুলো বাদামি লম্বাদাগসহ অনুজ্জ্বল সাদা, সংখ্যায় ২-৫টি, মাপ ৭.০x৪.৯ সে.মি.। ২৮ দিনে ছানারা বাসা ছাড়ে।
অবস্থা: বাংলাদেশের উদ্ভিদ ও প্রাণি জ্ঞানকোষে একে বাংলাদেশের অনিয়মিত পাখির তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে। রাঙা মানিকজোড় বিশ্বে প্রায়-বিপদগ্রস্ত এবং বাংলাদেশে মহাবিপন্ন বলে বিবেচিত। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ-প্রজাতি সংরক্ষিত।
বিস্তৃতি: বরিশাল, চট্টগ্রাম, ঢাকা বিভাগের জলাভুমিতে দেখা গেছে বলে তথ্য রয়েছে, উনিশ শতকে সিলেট বিভাগে ছিল এমন তথ্য আছে। ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলংকা, চিন, মায়ানমার, থাইল্যাণ্ড, ইন্দোচিনসহ দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ায় এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে।
বিবিধ: রাঙা মানিকজোড়ের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ ধলামাথা-পেটরা পাখি।
দেখার ইতিহাস: ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪তে এক জোড়া রাঙা মানিকজোড় দেখা গেছে বাংলাদেশের হাকালুকি হাওরে। ফেসবুকে সেই ছবি ও রেকর্ডের লিংক 


আরো পড়ুন:

No comments:

Post a Comment

জনপ্রিয় দশটি লেখা, গত সাত দিনের

Recommended