Thursday, November 29, 2012

ছোট মদনটাক বাংলাদেশের বিরল আবাসিক মহাবিপন্ন পাখি




ছোট মদনটাক; ফটোঃ সৌরভ মাহমুদ, বাংলাদেশ

বাংলা নাম: ছোট মদনটাক,
বৈজ্ঞানিক নাম: Leptoptilos javanicus (Horsfield, 1821)
সমনাম: Ciconia javanica, Horsfield, 1821 
ইংরেজি নাম: Lesser Adjutant.

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
বিভাগ: Chordata
শ্রেণী: Aves
পরিবার: Ciconiidae
গণ: Leptoptilos, Lesson, 1831;
প্রজাতি: Leptoptilos dubius (Gmelin, 1789)
ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকাLeptoptilos গণে পৃথিবীতে  প্রজাতির পাখি রয়েছে। বাংলাদেশে রয়েছে তার প্রজাতি। সেগুলো হলো ১. ছোট মদনটাক ও ২. বড় মদনটাক। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম ছোট মদনটাক
বর্ণনা: ছোট মদনটাক ন্যড়া মাথা ও অতিকায় ঠোঁটের জলচর পাখিদৈর্ঘ্য ১১০ সেমি, ওজন ৪.৫ কেজি, ডানা ৫৯ সেমি, ঠোঁট ২৮ সেমি,পা ২৪.৮ সেমি, লেজ ২৪ সেমিপ্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠের দিক উজ্জ্বল কালো; দেহের নিচের দিক সাদা; ডানার মধ্যপালক-ঢাকনির আগায় তিলাসহ কাঁধ-ঢাকনি ও ডানা উজ্জ্বল কালো; ডানা-ঢাকনি ও ডানার ভেতরের বড় পালক-ঢাকনির পাড় সরু সাদা; বুক, পেট ও ডানার নিচে সাদা; এবং টাক মাথা ও ঘাড়ে হলুদ ধূসর চুলের মত বিক্ষিপ্ত পালক থাকে।
স্বভাব: ছোট মদনটাক জলমগ্ন মাঠ, বড় হ্রদ, সৈকত, বহমান নদী, জলাধার, নরদমা, খাল, প্যারাবন, খোলা বন ও বাদাজমিতে বিচরণ করে; সচরসচর একা, জোড়ায় কিংবা ছোট দলে থাকে অগভীর পানিতে ধীরে হেঁটে এরা খাবার খায়; খাদ্যতালিকায় রয়েছে মাছ, ব্যাঙ, সাপ, টিকটিকি, চিংড়ি জাতীয় প্রাণি, কাঁকড়া ও পশুর মৃত দেহ, মাটি থেকে উড়ে উঠার আগে লম্বা দৌড় দেয় এবং গাছগাছালির ওপর ২-৩টি চক্র দিয়ে আকাশে উঠেউষ্ণ দিনে চিল ও শ কুনের ঝাঁকে যোগ দিয়ে আকাশে ভেসে বেড়ায়; এবং পূর্বরাগে দর্শনীয় পদক্ষেপ ও অঙ্গভঙ্গিসহ নাচে। নভেম্বর-জানুয়ারি মাসে প্রজননকালে বনের বড় গাছে ডালপালা দিয়ে বাসা বানিয়ে এরা ডিম পাড়ে ডিম সংখ্যায় ২-৫ টি, মাপ .×. সেমি৩০-৩৫ দিনে ছানারা বাসা ছাড়ে। ছানা উড়ার উপযুক্ত হলেও বাসা মেরামত চলে
বিস্তৃতি: ছোট মদনটাক বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি বর্তর্মানে শুধু সুন্দরবনে বাস করে। ভারত, নেপাল, শ্রীলংকা, চিন, থাইল্যাণ্ড, ইন্দোচিন, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ারহ দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে।
অবস্থা: ২০০৯ সালে এশিয়াটিক সোসাইটি কর্তৃক প্রকাশিত বাংলাদেশ উদ্ভিদ প্রাণী জ্ঞানকোষে এটিকে বাংলাদেশে বিপ্নন পাখি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছেবাংলাদেশের ১৯৭৪ সালের বন্যপ্রাণি আইনে এ-প্রজাতি সংরক্ষিত।
বিবিধ; Leptoptilos এই গণে পৃথিবীতে তিন প্রাজাতির পাখি রয়েছে বাংলাদেশে রয়েছে তার দুটি প্রজাতি। অন্য প্রজাতিটির নাম Marabou Stork বা Leptoptilos crumeniferus যার আবাস মধ্য আফ্রিকায়।
আমরা বাংলাদেশে আর কোনোদিনই বড় মদনটাক দেখার আশা করি না

No comments:

Post a Comment