Monday, December 10, 2012

চাওয়াই নদী বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের একটি আন্তঃসীমান্ত নদী




চাওয়াই নদী বা চাওলী নদীর প্রবাহ পথ
চাওয়াই নদী বা চাওলী নদী (ইংরেজি: Chaoi River) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের একটি আন্তঃসীমান্ত নদী। তবে নদীটি বাংলাদেশ ভারত যৌথ নদী কমিশন কর্তৃক স্বীকৃত আন্তঃসীমান্ত নদী নয়। নদীটি বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলা এবং পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার একটি নদী। নদীটির বাংলাদেশ অংশের দৈর্ঘ্য প্রায় ২৭ কিলোমিটার, গড় প্রশস্ততা ৭০ মিটার এবং প্রকৃতি সর্পিলাকার। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা পাউবো কর্তৃক চাওয়াই নদী প্রদত্ত পরিচিতি নম্বর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী নং ৩৮।[]

প্রবাহ: চাওয়াই নদীটি পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার রাজগঞ্জ সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের আরজি ভেলাকোবা গ্রামের বিলাঞ্চল হতে উৎপত্তি লাভ করে ছাত গুজরিমারী, সুকানি গ্রাম পেরিয়ে বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলার সাতমারা ইউনিয়নের অমরখানা ক্যাম্পের নিকট দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। অতঃপর নদীটির প্রবাহ একই জেলার একই উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়ন পর্যন্ত প্রবাহিত হয়ে করতোয়া নদীতে পতিত হয়েছে। চাওয়াই নদীতে সারাবছর পানিপ্রবাহ থাকে। বর্ষায় পানি প্রবাহ বৃদ্ধি পেলেও নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে বন্যার প্রকোপ দেখা দেয় না বা ভাঙন প্রবণতা পরিক্ষিত হয় না। শুষ্ক মৌসুমে প্রবাহের মাত্রা অনেকটা হ্রাস পায়। পলির প্রভাবে এর তলদেশ ভরাট হয়ে প্রবাহের মাত্রা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে।[১]

অন্যান্য তথ্য: চাওয়াই নদী বন্যাপ্রবণ নয়, নদীটি বারোমাসি প্রকৃতির এবং এই নদীর অববাহিকায় কোনো প্রকল্প নেই। এই নদীতে কোনো ব্যারাজ বা রেগুলেটর এবং কোনো বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধ নেই। এই নদীটিতে জোয়ারভাটার প্রভাব নেই। এই নদীর তীরে মির্জাপুর হাট, নাগেশ্বরী হাট, নলডাঙ্গা হাট ও নুরুলগঞ্জ হাট অবস্থিত।

তথ্যসূত্র:  
১. মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক, বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি, কথাপ্রকাশ, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি, ২০১৫, পৃষ্ঠা ১১২, ISBN 984-70120-0436-4.

আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা

. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

৪. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

৫. বাংলাদেশের ফলবৈচিত্র্যের একটি বিস্তারিত পাঠ


No comments:

Post a Comment