Thursday, January 03, 2013

১৬ বছরে বিএসএফ হত্যা করলো ১১৩৮ জন বাংলাদেশি



ফেলানি ঝুলছে না, ঝুলছে বাংলাদেশ




৭ জানুয়ারি ২০১৬ ফেলানি হত্যার পাঁচ বছর পালিত হয় বাংলাদেশে। ২০১১ সালে তাকে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তে বিএসএফ হত্যা করে। পাঁচ বছর পেরিয়ে গেলেও ফেলানিকে আমরা ভুলিনি। গত পাঁচ বছরের প্রচারণায় দিল্লির নির্যাতনের প্রতীক হয়ে উঠেছে ফেলানি। আমাদের বিবেককে বারবার নাড়া দিয়ে যায় ফেলানি। সেই ফেলানি হত্যার বিচার শুরু হয়েছিল কিন্তু ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সেই মামলার আসামিকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে এইভাবেই হাজার বাংলাদেশি হত্যার প্রতীককে বিচারের নামে প্রহসনে রূপান্তর করা হয় 

ড. তারেক শামসুর রেহমান ৩০ মে ২০১২ তারিখে প্রকাশিত এক লেখায় উল্লেখ করেছেন সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী, গত এক যুগে বিএসএফের হাতে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ১০০৬ জন বাংলাদেশি

দিল্লিতে পুঁজিবাদ, সম্প্রসারণবাদ যতদিন আছে ততদিন সীমান্তে বাংলাদেশের মানুষ মারা যাবেই ফেলানি হত্যার বিচার কেবল দিল্লির  পুঁজিবাদ, সম্প্রসারণবাদ, সামন্তবাদ ও প্রতিক্রিয়াশীল কংগ্রেস-বিজেপির কবর রচনার মাধ্যমেই হতে পারে
অন্য এক সূত্র থেকে পাওয়া গত ২০০০-২০০৮ সাল পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডের মোট বছরওয়ারি হিসাব নিম্নে দেয়া হলো মহাজোট সরকারের প্রথম ৪ বছরে ২৬১ জন নিরীহ বাংলাদেশীকে হত্যা করেছে ভারত
২০১৬ সালে ৪৫ জন
২০১৫ সালে ৪৬ জন,
২০১৪ সালে মোট হত্যা ৩৮ জন
২০১৩ সালে ১৯ জন,
২০১২ সালে ৪২ জন
২০১১ সালে ৩৪ জন,
২০১০ সালে ৭৪ জন,
২০০৯ সালে ৯৬ জন,
....................................
মহাজোট সরকারের ৮ বছরে ৩৯৪ জন

২০০৮ সালে ৬২ জন,
২০০৭ সালে ১২০ জন,
২০০৬ সালে ১৪৬ জন,
২০০৫ সালে ১০৪ জন,
২০০৪ সালে ৭৬ জন,
২০০৩ সালে ৪৩ জন,
২০০২ সালে ১০৫ জন,
২০০১ সালে ৯৪ জন এবং
২০০০ সালে ৩৯ জন নিরীহ বাংলাদেশী বিএসএফের হাতে নিহত হয়েছে
.........................................
গত ১৬ বছরে সর্বমোট- ১১৮৩ জন 

No comments:

Post a Comment