Thursday, August 01, 2013

নাগর নদী বাংলাদেশ ভারতের একটি আন্তঃসীমান্ত নদী


নাগর নদী




নাগর নদী: নাগর নদী বা নাগর আপার নদী বাংলাদেশ ভারতের একটি আন্তঃসীমান্ত নদী। এটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গ দিয়ে প্রবাহিত একটি নদী। নদীটি বাংলাদেশের উত্তরাংশের জেলা পঞ্চগড় ও ঠাকুরগাঁওয়ের মধ্য দিয়ে প্রবাহমান। নদীটির বাংলাদেশ অংশের দৈর্ঘ্য ১৩০ কিলোমিটার, গড় প্রস্থ ১১০ মিটার এবং নদীটির প্রকৃতি সর্পিলাকারবাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা পাউবো কর্তৃক নাগর নদীর প্রদত্ত পরিচিতি নম্বর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী নং ৬৫।[১] পুনর্ভবা, নাগর, কুলিক ও টাঙ্গন হচ্ছে মহানন্দা নদীর উপনদী।
প্রবাহ: নাগর নদী ভারতে উৎপন্ন হয়ে পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী উপজেলার ধামর ইউনিয়ন দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী উপজেলা হয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় প্রবেশ করে ঠাকুরগাঁও জেলার পশ্চিম সীমান্ত দিয়ে প্রবাহিত হয়ে অবশেষে হরিপুর উপজেলা হয়ে পুনরায় ভারতে প্রবেশ করেছে। প্রবাহপথে এ নদীর জলধারার সাথে মিলিত হয়েছে পেটকী খাল, ঘিঙ্গরা খাল, তীরনই নদী, নোনা নদী, যমুনা খাল ও জালুই খাল। নিচের অংশের বহির্গমন মুখে এ নদীর প্রশস্ততা অনেকটা বেড়ে গেছে।[১] নদীটির গতিপথ অধিকাংশ সময়ই ভারত-বাংলাদেশের সীমানা নির্দেশ করেছে। বাংলাদেশ অংশে এর দৈর্ঘ্য প্রায় ১২৫ কিমি। কিছুটা আকস্মিক বন্যা প্রবণতা রয়েছে, তবে তেমন একটা ক্ষয়-ক্ষতি করে না। শুষ্ক মৌসুমে পানি থাকে না, তবে কৃষকরা বর্ষা মৌসুমের পানিকে বাঁধ দিয়ে আটকে রেখে সেচের জন্য ব্যবহার করে থাকে।

তথ্যসূত্র:
১. মানিক, মোহাম্মদ রাজ্জাক (ফেব্রুয়ারি, ২০১৫)। বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতিঢাকা: কথাপ্রকাশপৃ: ১৩১-১৩২।

No comments:

Post a Comment