Friday, October 18, 2013

কানাইডিঙ্গা বাংলাদেশ ও গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলের ফুলগাছ



কানাইডিঙ্গা, Indian Trumpet Tree



বৈজ্ঞানিক নাম: Oroxylum indicum
সমনাম: Arthrophyllum ceylanicum Miq. Arthrophyllum reticulatum Blume ex Miq. Bignonia indica L. Bignonia lugubris Salisb. Bignonia pentandra Lour. Bignonia quadripinnata Blanco. Bignonia tripinnata Noronha. Bignonia tuberculata Roxb. ex DC. Calosanthes indica (L.) Blume. Hippoxylon indica (L.) Raf. Oroxylum flavum Rehder
বাংলা নাম: কানাইডিঙ্গা, শোনা, কটম্ভর, প্রিয়জীব, দীর্ঘবৃন্তক, পীতপাদপ  
ইংরেজি নাম: Broken bones plant, Indian calosanthes, Indian Trumpet Tree, Tree of Damocles.
সংস্কৃত নাম: শোনাক ও শুকনাশ।

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae - Plants
বর্গ: Lamiales
পরিবার: Bignoniaceae
গণ: Oroxylum
প্রজাতি/Species: Oroxylum indicum
পরিচিতি: কানাইডিঙ্গা সাধারণত ২০ থেকে ৩০ ফুট উঁচু হOroxylum গণে একটিই প্রজাতি। কাণ্ড ও ডালপালা ততটা নিশ্ছিদ্র নয়। পাতা সমদূরত্বে সারিবদ্ধ, বেশ নান্দনিক। দীর্ঘ সময় ধরে ফুল ফোটে; বর্ষার শেষভাগ থেকে প্রায় হেমন্ত অবধি। লম্বাটে মঞ্জরিদণ্ডের আগায় আঙুলের ডগার মতো অসংখ্য কলি ঈষৎ ঝুলে থাকে। দিনের আলোয় কোনো ফুল ফোটার প্রস্তুতি চোখে পড়ে না। রাতের অন্ধকারে অতি দ্রুততার সঙ্গে তা শেষ হয়। ফুল প্রথম দর্শনে পীতপাটলাও মনে হতে পারে। গড়নের দিক থেকে প্রায় একই হলেও এই গণে এরাই একমাত্র প্রজাতি। গুচ্ছবদ্ধ ফুল বেশ বড়, ঈষৎ হলুদবেগুনি রঙের। ৫টি পাপড়িই গভীরভাবে মোড়ানো, পরাগকেশর স্পষ্ট, দুর্গন্ধি।
ব্যবহার: গাছটির মূল, ছাল ও বীজ থেকে বিভিন্ন রোগের ওষুধ বানানো হয়।
আমার অভিজ্ঞতা: কানাইডিঙ্গা নামের এক বিরল গাছের সাথে পরিচিত হই ময়মনসিংহের গফরগাঁয়ে চাকরীকালীন ২০০৬ সালের দিকে। গফরগাঁও সরকারি কলেজে একটি গাছ অনেক মেহগনি গাছের ভেতরে অযত্নে টিকে ছিল। এখন আছে কিনা জানি না। তবে প্রায় দেড় হাত বা দুই ফুট লম্বা নৌকার বা ডিঙ্গার মতো ফলটি আমাকে খুব টানত। প্রায় চার ইঞ্চি লম্বা ফুলটিও মুগ্ধ করেছে।
বহুদিন পর সেই গাছটি হটাত আবিষ্কার করি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে। কিন্তু কিছুদিন পর সেখানে দেখি বিল্ডিং তৈরির জন্য টিনের বেড়া উঠছে। ভয় পেয়ে যাই, কানাইডিঙ্গার আসন্ন মৃত্যু কল্পনা করে। কিন্তু পরে দেখি গাছটি কাটা পড়েনি।
ময়মনসিংহের কয়েকটি গ্রামে এ গাছটি এখনো টিকে আছে। আমার ময়মনসিংহের বন্ধুরা কী পারবেন এ গাছটিকে রক্ষা করতে। উল্লেখ্য ঢাবি বোটানিক্যাল গার্ডেনে এবং মিরপুরের জাতীয়  উদ্ভিদ উদ্যানে এ গাছটি আছে।
কানাইডিঙ্গা, গাছের  ফলের ছবিটি ময়মনসিংহের দাপুনিয়া ইউনিয়নের কোনো এক গ্রাম থেকে ৪ অক্টোবর, ২০১৩  তারিখে তুলেছেন বিজন সম্মানিত।

আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা 

৪. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

No comments:

Post a Comment