Friday, December 13, 2013

দাগি নাটাবটের বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি



দাগি নাটাবটের, Photo: Kiron Khan
দ্বিপদ নাম: Turnix suscitator
সমনাম: Tetrao suscitator Gmelin, 1789
বাংলা নাম: দাগি নাটাবটের
ইংরেজি নাম: Barred Buttonquail (Common Bustard-Quail, Barred Bustard-Quail)

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia
বিভাগ/Phylum: Chordata
শ্রেণী/Class: Aves
পরিবার/Family: Turnicidae
গণ/Genus: Turnix, Bonnaterre, 1791;
প্রজাতি/Species: Turnix suscitator (Gmelin, 1789)
ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকাTurnix বা নাটাবটের গণে রয়েছে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৩টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশের প্রজাতি তিনটি হচ্ছে; ১. দাগি নাটাবটের,. ছোট নাটাবটের ও ৩. হলদেপা নাটাবটের। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে দাগি নাটাবটের
বর্ণনা: দাগি নাটাবটের ছোট ভূচর পাখি (দৈর্ঘ্য ১৫ সেমি, ওজন ৫৫ গ্রাম, ডানা ৪ সেমি, ঠোঁট ১.৫ সেমি, পা ২.৩ সেমি, লেজ ৩.৫ সেমি)মেয়েপাখি ছেলেপাখির চেয়ে বেশি রঙ্গীনছেলেপাখির পিঠ লালচে-বাদামি ও কালো; ডানার পালক-ঢাকনিতে খাড়া, কালো ও ঈষৎ পীত বর্ণের ডোরা রয়েছে; থুতনি ও গলা সাদাটে; বুক ও ঘাড়ের পাশে পীতাভ ও কালো ডোরা; বগলে কালো ডোরাসহ দেহতল উষ্ণ কমলা-লালমেয়েপাখির থুতনি, গলা ও বুকের ঠিক মাঝখানটা কালচে; বুকের পাশ ও তলদেশে কালো ও পীতাভ ডোরা থাকেছেলে মেয়ে উভয়ের চোখ সাদা বা হলদে; ঠোঁট নীলচে-স্লেট রঙ, গোড়া ঘন বাদামি; পা ও পায়ের পাতা সীসার মত ধূসর১৮টি উপ-প্রজাতির মধ্যে T. s. plumbipesT. s. bengalensis বাংলাদেশে পাওয়া যায়
স্বভাব: দাগি নাটাবটের ক্ষুদ্র ঝোপ ও জঙ্গলসহ তৃণভূমি, বনপ্রান্ত ও খামারে বিচরণ করে; একা অথবা জোড়ায় থাকতে দেখা যায়এরা মাটিতে হেঁটে ঝরাপাতা উল্টে খাবার খুঁজে বেড়ায়; খাদ্যতালিকায় রয়েছে বীজ, শস্যদানা, কচিকাণ্ড, উইপোকা ও পিঁপড়াএরা সাধারণত একই জায়গায় দিনের পর দিন খাবার খেতে আসে; উড়লে পাখায় বোঁ বোঁ শব্দ হয়; হঠাৎ উঁচু স্বরে ডেকে ওঠে: ঢুরর-র-র-র-র ...জুন-অক্টোবর মাসে প্রজনন ঋতুতে ঘাসবন, ঝোপ-জঙ্গল বা শস্যক্ষেতের মাটিতে ঘাস দিয়ে বাসা বানিয়ে এরা পাড়েডিমগুলো ধূসর-সাদা ছোট দাগ ও ফুসকুড়িসহ লালচে-বাদামি বা কালচে-বেগুনি; সংখ্যায় ৪টি১৫ দিনে ডিম ফোটে পুরুষপাখি ডিমে তা দেওয়া থেকে শুরু করে গৃহস্থালির যাবতীয় কাজ একা করে
বিস্তৃতি: দাগি নাটাবটের বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি; চট্টগ্রাম, ঢাকা ও সিলেট বিভাগের বনের ধারে এবং গ্রামে পাওয়া যায়ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, চীন, ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনসহ কেবল এশিয়া মহাদেশে এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে
অবস্থা: দাগি নাটাবটের বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশে অপ্রতুল-তথ্য শ্রেণিতে রয়েছেবাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতি সংরক্ষিত
বিবিধ: দাগি নাটাবটের পাখির বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ সতর্ক তিতির (ল্যাটিন: coturnix = তিতির, suscitator = সতর্ক )

No comments:

Post a Comment

জনপ্রিয় দশটি লেখা, গত সাত দিনের

Recommended