Wednesday, December 04, 2013

ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস বাংলাদেশের সুলভ পরিযায়ী হাঁস




ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস, ছেলে ও মেয়ে, ফটো: ইংরেজি উইকিপিডিয়া থেকে
দ্বিপদ নাম: Anas penelope
সমনাম: নেই
বাংলা নাম: ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস, লালশির (আই)
ইংরেজি নাম: Eurasian Wigeon

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia
বিভাগ/Phylum: Chordata
শ্রেণী/Class: Aves
পরিবার/Family: Anatidae
গণ/Genus: Anas, Linnaeus, 1758;
প্রজাতি/Species: Anas penelope Linnaeus, 1758
ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকা Anas গণে বাংলাদেশে রয়েছে ১০টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৪২টি প্রজাতি রয়েছে। বাংলাদেশর নিম্নোক্ত ১০টি প্রজাতি হচ্ছে ১. উত্তুরে ল্যাঞ্জাহাঁস, ২. উত্তুরে খুন্তেহাঁস, ৩. পাতি তিলিহাঁস, ৪. ফুলুরি হাঁস, ৫. বৈকাল তিলিহাঁস, ৬. ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস, ৭. নীলমাথা হাঁস, ৮. দেশি মেটেহাঁস, ৯. গিরিয়া হাঁস ও ১০. পিয়াং হাঁস। আমাদের আলোচ্য হাঁসটি হচ্ছে ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস
বর্ণনা: ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস নীলচে ঠোঁটওয়ালা মাঝারি আকারের হাঁস (দৈর্ঘ্য ৪৯ সেমি, ওজন ৬৭০ গ্রাম, ডানা ২৫.৫ সেমি, ঠোঁট ৩.৩ সেমি, পা ৩.৭ সেমি, লেজ ১০ সেমি)ছেলে মেয়েহাঁসের চেহারায় পার্থক্য রয়েছে প্রজননকালে ছেলেহাঁসের স্পষ্ট হলুদ কপাল; মাথা তামাটে; বগল ধূসর; লেজের তলা কালো; বুক প্রায় পাটল বর্ণের; ওড়ার সময় ডানার সাদা অগ্রভাগ স্পষ্ট চোখে পড়েলালচে বাদামি মেয়েহাঁসের বগল পীতাভ; পেট সাদা; খয়েরি ডানা-ঢাকনিছেলে মেয়েহাঁসের উভয়ের চোখ বাদামি বা লালচে বাদামি; ঠোঁট ধূসর ও নীলে মিশ্রিত; পায়ের পর্দা ও অস্থিসন্ধি কালো, এবং নখর কালচে প্রজননকাল ছাড়া ছেলেহাঁসের পিঠে কালো সূক্ষ্ম লাইন ও সাদাটে দেহতল ছাড়া মেয়েহাঁসের মত দেখতে
স্বভাব: ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস অগভীর হ্রদ, নদী, ডোবা, জোয়ার-ভাটার খাঁড়ি, লবনের ঘের ও লতাপাতা আবৃত জলাশয়ে বিচরণ করে; সাধারণত বড় বড় ঝাঁকে দেখা যায়জলাশয়ের পাড়ে হেঁটে অথবা অগভীর জলে মাথা ডুবিয়ে খাবার খোঁজে; খাদ্যতালিকায় রয়েছে ভেজা ঘাস, জলজ উদ্ভিদ, পোকামাকড়, লার্ভা ইত্যাদি ওড়ার সময় এরা মুখে শন শন শব্দ করে; অন্য সময় ছেলেহাঁস শিস দেয়: হুউহিও..; এবং মেয়েহাঁস ডাকে: এরর্র-এর্রর-এর্রর..জুন-সেপ্টেম্বর মাসের প্রজনন ঋতুতে সাইবেরিয়ায় পানির কাছাকাছি ঝোপের মধ্যে মাটিতে নল, ঘাস ইত্যাদির ওপর পালকের বাসা বেঁধে এরা ডিম পাড়েডিমগুলো হালকা পীতাভ; সংখ্যায় ৭-১২টি; মাপ ৫.৪ × ৩.৫ সেমি২৪-২৫ দিনে ডিম ফোটে
বিস্তৃতি: ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস বাংলাদেশের সুলভ পরিযায়ী হাঁস; শীতে বরিশাল, চট্টগ্রাম, ঢাকা, রাজশাহী ও সিলেট বিভাগের উপকূলসহ নদী ও হাওরে পাওয়া যায়ইউরোপ হয়ে আফ্রিকার উত্তরাংশ ও এশিয়া পর্যন্তÍ এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে; এশিয়া মহাদেশে পাকিস্তান, ভারত, নেপাল, শ্রীলংকা, ভুটান, চীন ও ফিলিপাইনে পাওয়া যায়
অবস্থা: ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস বিশ্বে বিপদমুক্ত বলে বিবেচিতবাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতি সংরক্ষিত
বিবিধ: ইউরেশীয় সিঁথিহাঁসের বৈজ্ঞানিক নামে অর্থ পেনিলোপ হাঁস (ল্যাটিন: Anas = হাঁস ; গ্রীক: Penelope = পেনিলোপ, ইউলিসিসের পত্নী)

No comments:

Post a Comment

জনপ্রিয় দশটি লেখা, গত সাত দিনের

Recommended