Saturday, December 21, 2013

ছোট হলদেকুড়ালি বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি



ছোট হলদেকুড়ালি, ফটো: ইংরেজি উইকিপিডিয়া থেকে
দ্বিপদ নাম: Picus chlorolophus Vieillot, 1818
সমনাম: নেই
বাংলা নাম: ছোট হলদেকুড়ালি
ইংরেজি নাম: lesser Yellownape.

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia
বিভাগ/Phylum: Chordata
শ্রেণী/Class: Aves
পরিবার/Family: Picidae
গণ/Genus: Picus, Linnaeus, 1758;
প্রজাতি/Species: Picus chlorolophus Vieillot, 1818
ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকাPicus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ১৫টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতি চারটি হচ্ছে, ১. মেটেমাথা কাঠকুড়ালি,. ছোট হলদেকুড়ালি, ৩. বড় হলদেকুড়ালি  . দাগিবুক কাঠকুড়ালি ও ৫. দাগিগলা কাঠকুড়ালি। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে ছোট হলদেকুড়ালি
বর্ণনা: ছোট হলদেকুড়ালি চোখে ও ঘাড়ে লাল রঙের সাজসজ্জা করা হলদেঝুটি কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ২৭ সেমি, ডানা ১৩.৫ সেমি, ঠোঁট ২.৪ সেমি, পা ২.২ সেমি, লেজ ৮.৫ সেমি)প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠ সবুজাভ-হলুদ; দেহতলে ডোরা আছে; ডানার মধ্য-পালক তামাটে লাল; ডানার কালো প্রান্ত-পালকে সাদা ডোরা; বাদামি-কালো লেজ; পেটে সাদা ও সবুজ ডোরা রয়েছে; ঘাড়ে এক গুচ্ছ হলুদ পালক; থুতনি সাদা এবং বুক ও পিঠ সবুজাভএর ঠোঁট শিঙ-বাদামি, চোখ গাঢ় লাল ও চোখের চারিপাশে লোমহীন স্লেট-রঙা ত্বক; পা ও পায়ের পাতা সবুজাভ ও নখর বাদামিছেলেপাখির চোখ ও ঘাড়ের মাঝখানটায় উজ্জ্বল লোহিত রঙের ডোরা, গাঢ় লাল রঙের টান চোখের ওপর দিয়ে চলে গেছেমেয়েপাখিতে চোখ ও ঘাড়ের মাঝখানটায় উজ্জ্বল লোহিত রঙের ডোরা নেই কিন্তু প্রশস্ত গাঢ় লাল রঙের টান চোখের পিছন থেকে ঘাড় পর্যন্ত বিস্তৃত৯টি উপ-প্রজাতির মধ্যে P. c. chlorolophus কেবল বাংলাদেশে পাওয়া গেছে
স্বভাব: ছোট হলদেকুড়ালি প্রশস্ত পাতার চিরসবুজ বন, পাতাঝরা বন, পাহাড়ি বন ও প্যারাবনে বিচরণ করে; সাধারণত জোড়ায় ঘুরে বেড়ায়; মাঝে মাঝে ফিঙে, ছাতারে ও অন্যান্য পতঙ্গভুক পাখির সহযোগী হয়ে শিকার করতে দেখা যায়ঠোকর দিয়ে গাছের বাকল থেকে এরা খাদ্য সংগ্রহ করে; খাদ্যতালিকায় রয়েছে: পিঁপড়া ও উইপোকা, কাঠ ছিদ্রকারী পোকা, পিউপা ও রসালো ফলখাবার খাওয়ার সময় এরা নাকি সুরে ডাকে: পী-অ্যা..এপ্রিল-মে মাসে প্রজনন ঋতুতে ছেলেপাখি ঘাড়ের হলুদ ঝুটি খাড়া করে মাথা এপাশ ওপাশ ঘুরায় ও ফাঁপা কাঠে আঘাত করে ড্রাম বাজায়; এবং বনের মধ্যে ক্ষয়ে যাওয়া গাছের কাণ্ডে গর্ত খুঁড়ে বাসা বানিয়ে মেয়েপাখি ডিম পাড়েডিমগুলো সাদা, সংখ্যায় ৩-৫টি; মাপ ২.৪×১.৯ সেমিছেলে মেয়ে উভয়ই বাসার সব কাজ করে
বিস্তৃতি: ছোট হলদেকুড়ালি বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি; চট্টগ্রাম, খুলনা ও সিলেট বিভাগের চিরসবুজ বনে ও প্যারাবনে বিচরণ করেভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, শ্রীলংকা, চীন ও ইন্দোনেশিয়াসহ দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে
অবস্থা: ছোট হলদেকুড়ালি বিশ্বে ও বাংলাদেশে বিপদমুক্ত বলে বিবেচিতবাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতি সংরক্ষিত
বিবিধ: ছোট হলদেকুড়ালির বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ হলদেঝুটি কাঠঠোকরা (গ্রীক : pikos = কাঠঠোকরা, khloros = হলুদ, lophos = ঝুটি)
বাংলাদেশ উদ্ভিদ প্রাণী জ্ঞানকোষে এই নিবন্ধটির লেখক ইনাম আল হক ও এম. কামরুজ্জামান। 


আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা  

. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

৩. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

৪. বাংলাদেশের ফলবৈচিত্র্যের একটি বিস্তারিত পাঠ

No comments:

Post a Comment