Wednesday, March 12, 2014

তামাটে কাঠকুড়ালি বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি



দ্বিপদ নাম: Blythipicus pyrrhotis
সমনাম: Picus pyrrhotis (Hodgson, 1837)
বাংলা নাম: তামাটে কাঠকুড়ালি
ইংরেজি নাম: Bay Woodpecker.

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia
বিভাগ/Phylum: Chordata
শ্রেণী/Class: Aves
পরিবার/Family: Picidae
গণ/Genus: Blythipicus, Bonaparte, 1854;
প্রজাতি/Species: Blythipicus pyrrhotis (Hodgson, 1837)
ভূমিকাঃ বাংলাদেশের পাখির তালিকাBlythipicus গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ও আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে তামাটে কাঠকুড়ালি
বর্ণনা: তামাটে কাঠকুড়ালি লাল ডানায় বাদামি ডোরা দেওয়া পাহাড়ি কাঠঠোকরা (দৈর্ঘ্য ২৭ সেমি, ওজন ১৭০ গ্রাম, ডানা ১৪৫ সেমি, ঠোঁট ৫ সেমি, পা ৩ সেমি, লেজ ৯ সেমি)মেয়েপাখি ছেলেপাখির চেয়ে কিছুটা ছোট প্রাপ্তবয়স্ক পাখির পিঠ লাল ও দেহতল কালচে বাদামি; কাঁধ-ঢাকনি ও ডানায় প্রশস্ত কালচে বাদামি ডোরা আছে; ঠোঁট ফ্যাকাসে, চোখ অনুজ্জ্বল গাঢ় লাল ও পা শিঙ-বাদামিছেলেপাখির কান-ঢাকনি ও ঘাড়ের পাশে উজ্জ্বল লাল পট্টি রয়েছে অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখির মাথায় ছিটা-দাগ থাকে কাঁধ-ঢাকনিতে বেশি স্পষ্ট দাগ ও ঘাড়ের পাশে লাল ছিটা থাকে৫টি উপ-প্রজাতির মধ্যে B. p. pyrrhotis বাংলাদেশে পাওয়া যায়
স্বভাব: তামাটে কাঠকুড়ালি ঘন প্রশস্ত পাতার চিরসবুজ বন, বাঁশবন ও পাহাড়ি বনে বিচরণ করে; একা, জোড়ায় বা পারিবারিক দলে দেখা যায়মৃত গাছের কাটা গোড়া, পতিত কাঠের গুঁড়ি, শেওলাঢাকা গাছের কা- ও মাটির কাছাকাছি বাঁশে ঠুকরে এরা খাবার সংগ্রহ করে; খাদ্যতালিকায় রয়েছে সাদা পিঁপড়া ও গুবরে পোকার লার্ভাআহারের সময় উচ্চ সুরে এরা বারবার ডাকে: চ্যাক, চ্যাক, চ্যাক ...; প্রতিযোগীকে হুমকি দেবার জন্য ডাকে: কেরেরে-কেরেরে-কেরেরেমার্চ-জুন মাসের প্রজনন ঋতুতে ভূমি থেকে ১-৪ মিটারের মধ্যে গাছের কাণ্ডে গর্ত খুঁড়ে বাসা বানিয়ে ডিম পাড়েডিমগুলো সাদা, সংখ্যায় ৩-৪টি; মাপ ২.৯×২.১ সেমি ছেলে মেয়ে উভয়ই বাসার সব কাজ করে
বিস্তৃতি: তামাটে কাঠকুড়ালি বাংলাদেশের বিরল আবাসিক পাখি; চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের উঁচু এলাকার চিরসবুজ বনে পাওয়া যায়হিমালয় ও চিনের দক্ষিণাঞ্চল থেকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে; দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ভারত, নেপাল,ভুটান, থাইল্যান্ড, লাওস, ভিয়েতনাম ও মালয়েশিয়ায় রয়েছে
অবস্থা: তামাটে কাঠকুড়ালি বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশে অপ্রতুল-তথ্য শ্রেণিতে রয়েছেবাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতি সংরক্ষিত
বিবিধ: তামাটে কাঠকুড়ালির বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ ব্লাইদ-এর অগ্নিকর্ণ (Blythipicus = এডওয়ার্ড ব্লাইদ, ইংরেজ প্রাণিবিদ, ১৮১০-১৮৭৩; গ্রীক : pyrrhos = শিখা বর্ণ, otis = কান ওয়ালা)
বাংলাদেশ উদ্ভিদ প্রাণী জ্ঞানকোষে এই নিবন্ধটির লেখক ইনাম আল হক ও এম. কামরুজ্জামান


আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা 

. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

৩. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

৪. বাংলাদেশের ফলবৈচিত্র্যের একটি বিস্তারিত পাঠ

No comments:

Post a Comment