Sunday, March 16, 2014

নীলগলা বসন্ত বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি



নীলগলা বসন্ত, ফটো: রেজাউল হাফিজ রাহী, বাংলাদেশ

দ্বিপদ নাম: Megalaima asiatica
সমনাম: Trongon asiatica Latham, 1790
বাংলা নাম: নীলগলা বসন্ত
ইংরেজি নাম: Blue-throated Barbet.

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্যKingdom: Animalia
বিভাগ/Phylum: Chordata
শ্রেণী/Class: Aves
পরিবার/Family: Captonidae
গণ/Genus: Megalaima, Gray, 1842;
প্রজাতি/Species: Megalaima asiatica (Latham, 1790)
ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকাMegalaima গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ৫টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ২৪টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিগুলো হচ্ছে ১. নীলগলা বসন্ত, ২. নীলকান বসন্ত, ৩. সেকরা বসন্ত, ৪. দাগি বসন্ত ও ৫. বড় বসন্ত। আমাদের আলোচ্য প্রজাতিটির নাম হচ্ছে নীলগলা বসন্ত
বর্ণনা: নীলগলা বসন্তপুরোপুরি সবুজ রঙের বৃক্ষচারী পাখি (দৈর্ঘ্য ২৩ সেমি, ওজন ৮০ গ্রাম, ডানা ১০.৫ সেমি, ঠোঁট ২.৮ সেমি, পা ২.৮ সেমি, লেজ ৬.৫ সেমি)প্রাপ্তবয়স্ক পাখির সামান্য কিছু পালক ছাড়া দেহের পুরোটাই ঘাসসবুজ বর্ণের; মুখ, গলা ও বুকের উপরিভাগ নীল; বুকের পাশে লাল পট্টি রয়েছে; কপাল লাল, চাঁদি কালো ও গাঢ় লালএর কালো কালমেনসহ ঠোঁট ফ্যাকাসে-ধূসর শিঙ-রঙা; কমলা-হলুদ সরু চোখের কিনারাসহ চোখ লালচে-বাদামি; পা ও পায়ের পাতা সবুজাভ-শ্লেট এবং নখর শিঙ-বাদামির মিশ্রণছেলে মেয়েপাখির চেহারা অভিন্নঅপ্রাপ্তবয়স্ক পাখির অনুজ্জ্বল মাথায় সবুজ ও কালো মেশানো রঙসহ লাল চাঁদি রয়েছে৪টি উপ প্রজাতির মধ্যে M. a. asiaticaM. a. rubescens বাংলাদেশে পাওয়া যায়
স্বভাব: নীলগলা বসন্ত সকল বন, কুঞ্জবন ও বাগানে বিচরণ করে; সাধারণত একা বা জোড়ায় দেখা যায়; মাঝেমধ্যে অন্যান্য ফলাহারী পাখির মিশ্র দলে যোগ দেয় এরা ফলদ গাছ থেকে খাবার সংগ্রহ করে; খাদ্যতালিকায় রয়েছে ফল, ম্যানটিস্ ও অন্যান্য পোকাসাধারণত এরা জোর গলায় দীর্ঘক্ষণ ধরে ডাকে: কুটুররুক...; প্রজনন ঋতুতে প্রায় বিরতিহীনভাবে সারাদিন ডাকতে থাকে এবং পাশের ছেলেপাখিরা ডাকের প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়মার্চ-জুলাই মাসে প্রজনন ঋতুতে ভূমি থেকে ২-৮ মিটার উপরে গাছের কাণ্ডে গর্ত খুঁড়ে বাসা বানিয়ে ডিম পাড়ে ডিমগুলো সাদা, সংখ্যায় ৩-৪টি; মাপ ২.৭×২.০ সেমি
বিস্তৃতি: নীলগলা বসন্ত বাংলাদেশের সুলভ আবাসিক পাখি; সব বিভাগের বন ও গ্রামীণ কুঞ্জবনে বিচরণ করেপাকিস্তানের হিমালয়ের পাদদেশ, ভারত, নেপাল ও ভুটান থেকে চিনের দক্ষিণাঞ্চল, লাওসের দক্ষিণাঞ্চল ও ভিয়েতনাম, মিয়ানমার এবং থাইল্যান্ড পর্যন্ত এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে
অবস্থা: নীলগলা বসন্ত বিশ্বে ও বাংলাদেশে বিপদমুক্ত বলে বিবেচিতবাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতি সংরক্ষিত
বিবিধ: নীলগলা বসন্ত পাখির বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ এশিয়ার গলাবাজ (গ্রিক: megalos = বড়, laimos =গলা; ল্যাটিন: asiaticus =এশিয়ার)
বাংলাদেশ উদ্ভিদ প্রাণী জ্ঞানকোষে এই নিবন্ধটির লেখক ইনাম আল হক ও এম. কামরুজ্জামান। 



আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা  

. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

৩. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

৪. বাংলাদেশের ফলবৈচিত্র্যের একটি বিস্তারিত পাঠ

No comments:

Post a Comment