Tuesday, March 25, 2014

গোবিন্দ অধিকারী উনিশ শতকের কৃষ্ণ যাত্রার একজন বিখ্যাত পালাকার



বৃন্দাবনের রাধার অনন্য প্রেম

“শুক-শারী সংবাদ” বা ‘বৃন্দাবন বিলাসিনী রাই আমাদেরগানটি আমরা লোপামুদ্রা মিত্রের এবং কনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (১৯২৪ ২০০০) কণ্ঠে শুনেছি বহুবার। এই গানটি উত্তম কুমার (১৯২৬- ৮০) অভিনীত রাইকমলসিনেমাতেও গাওয়া হয়েছিল। সেই বিখ্যাত গানটির গীতিকারের নাম গোবিন্দ অধিকারী। তিনি ছিলেন উনিশ শতকের একজন বিখ্যাত যাত্রাভিনেতা এবং কৃষ্ণ যাত্রায় দুতী সাজতেন। সেসময় শিশুরাম অধিকারী, পরমানন্দ অধিকারী, গোবিন্দ অধিকারী ছিলেন কৃষ্ণ যাত্রার পালাকার। ১৬ শতক থেকে ১৮ শতক কৃষ্ণ যাত্রা, শক্তি যাত্রা, পাল যাত্রা, নাথ যাত্রা, সেই সঙ্গে সংকীর্তন ও কবির গান বাংলাদেশে প্রচলিত ছিল। যাত্রার ভেতর কৃষ্ণ যাত্রার শুরু হয় ১৬ শতকে। সেই ধারার কৃষ্ণযাত্রায় গোবিন্দ অধিকারীদুতীগিরি দেখবার জন্য দশ ক্রোশ বা বিশ মাইল রাস্তা হেঁটে লোকে যাত্রা দেখতে যেত। “চুক্তির টাকা” ছাড়াও তিনি আসরে অনেক টাকা উপহার পেতেন। তাঁর গানে মোহিত হয়ে অর্থহীন লোকে গায়ের উত্তরীয় পর্যন্ত খুলে পারিতোষিক দিতেন।
গোবিন্দ অধিকারী (১৭৯৮-১৮৭০) বাংলা ১২০৫ সালে হুগলী জেলায় জন্মগ্রহণ করেন এবং ১২৭৭ সালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি কীর্তনের দোহারও গাইতেন। যাত্রার গানে তাঁর লেখা অনুপ্রাস বেশ মনোগ্রাহী। তাঁর এই চমৎকার শুক-শারী সংবাদ গানটির অনুসরণে দ্বিজেন্দ্রলাল রায় (১৮৬৩-১৯১৩) লিখেছিলেন “কৃষ্ণ বলে আমার রাধে বদন তুলে চাও” গানটি। এই গান শুনলে মনে হবে রাধার প্রেমে আসলেই অনন্য, এ ভালবাসা অবশ্যই স্বর্গীয়এছাড়াও গোবিন্দ অধিকারীর অন্য আরেকটি বিখ্যাত গান হচ্ছে চম্পক বরণী বলি, দিলি যে চমক কলি/ এ ফুলে এ কল আছে কে জানে ...।
এই গানটি এবং গানটির গীতিকার গোবিন্দ অধিকারী সম্পর্কে তথ্য পেয়েছি কাজী মোতাহার হোসেন রচনাবলী থেকে। আবদুল হক (১৯১৮-৯৭) সম্পাদিত বাংলা একাডেমী, ঢাকা থেকে ১৯৮৪ সালে প্রকাশিত প্রথম খণ্ডের ৭১-৭২ পৃষ্ঠাতে গানটির যে লিখিত ভাষ্যটি কাজী মোতাহার হোসেন (১৮৯৭-১৯৮১) তাঁর ‘বাঙ্গালীর গান’ প্রবন্ধে দিয়েছেন তা এখানে দেয়া হলও। অবশ্য সেখানে গানটির অংশবিশেষ কাজী মোতাহার হোসেন উল্লেখ করেছিলেন। এ থেকে বোঝা যাচ্ছে গানটি অনেক বড় ছিলো। কনিকা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কীর্তনটি ১৯৫২ সালে রেকর্ড করেন।

আপনারা যারা বৃন্দাবন বিলাসিনী রাই আমাদেরগানটি শোনেননি তারা ইউটিউবে লোপামুদ্রা মিত্রের গাওয়া গানটি শুনতে পারবেন এই লিংক থেকে এবং কনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাওয়া গানটি শুনতে পারবেন এই লিংক থেকে

No comments:

Post a Comment