Wednesday, April 09, 2014

ভারতীয় সম্প্রসারণবাদ দক্ষিণ এশিয়ার জনগণকে শাসন-শোষণের জোয়াল



ভারত প্রভাবিত অঞ্চলসমূহ ও ভারতীয় সম্প্রসারণবাদ
সমাজ-গণতন্ত্রী বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল ও ভারতের এসইউসিআই গোত্রের তত্ত্ববিহীন অনুশীলনপন্থী কমরেডরা একটি সহজ হিসাব মিলিয়ে দেন যে টাটা-বিড়লা-আম্বানিরা যেহেতু গোটা দুনিয়াতে ব্যবসার জন্য নেমে পড়েছে, বিদেশে পুঁজি খাটাচ্ছে; তাই ভারত এখন সাম্রাজ্যবাদী রাষ্ট্র। কিন্তু যেই পক্ষ ভারতকে সম্প্রসারণবাদী বলে তাদের যুক্তিগুলো তারা বিবেচনায় নিতে চা না। ভারত কেন সাম্রাজ্যবাদী নয় সেজন্য প্রধান প্রশ্নটি এটি যে, ারত কেন অন্য সাম্রাজ্যবাদী রাষ্ট্রের সাথে বিরোধে জড়ায় না, ভারত কেন ভারী যুদ্ধাস্ত্র নির্মাণে যায় না, এমনকি ভারত কেন রেল-শিল্পেরও সর্বোচ্চ উন্নতি করে না?
আসুন দেখা যাক সম্প্রসারণবাদ (ইংরেজি: expansionism) কাকে বলে?
সাধারণভাবে সম্প্রসারণবাদ গঠিত হয় রাষ্ট্রের ও সরকারের সম্প্রসারণবাদী নীতিগুলোর বাস্তবায়নের মাধ্যমে। কেউ কেউ এটিকে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর সাথে যুক্ত শব্দ হিসেবেও ব্যবহার করেন। আরো সচরাচরভাবে সাধারণত সম্প্রসারণবাদ নির্দেশ করে রাষ্ট্রের ভূখণ্ডগত ভিত্তি বা অর্থনৈতিক প্রভাব বৃদ্ধির মতবাদ, যদিও সামরিক আগ্রাসনের মাধ্যমে এটি করা প্রয়োজনীয় নয়। এটি সাম্রাজ্যবাদ, উপনিবেশবাদ ও আবাসভূমিবৃদ্ধিবাদের (Lebensraum) সাথে তুলনীয়।
কিন্তু যখন সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য হচ্ছে আগের ভূমি দখল বা হারানো ভূমি পুনর্দখল করা তখন শাসনবাদ (Irredentism), প্রতিশোধবাদ (Revanchism), অথবা প্যান-জাতিয়তাবাদ মাঝে মাঝে সম্প্রসারণবাদকে ন্যায্য এবং বৈধ করতে ব্যবহৃত হয়একটি সরল ভূখণ্ডগত বিরোধ, যেমন সীমান্ত বিরোধ সচরাচর সম্প্রসারণবাদকে নির্দেশ করে না।
বাংলাদেশ ও দক্ষিণ এশিয়ার জনগণের অন্যতম শত্রু হলো ভারতের শোষক শাসকশ্রেণী, সাম্প্রদায়িক হিঁদু জাতিদম্ভবাদ ও দেশটির বৃহৎ পুজি। দেশটি অবৈধভাবে সিকিম, সেভেন সিস্টার্স, কাশ্মীরকে দখল করে সেখানে গত ৫০ বছর জরুরী অবস্থা জারি করে রেখেছে। আর পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে নিজেদের অর্থনৈতিক প্রভাব বাড়িয়ে চলছে। ব্রিটিশ উপনিবেশবাদের উত্তরাধিকার বহনকারী কেন্দ্রীভূত ভারত রাষ্ট্র তার পড়শি দেশগুলো ও নিজ দেশের বিভিন্ন জাতি ও জনগণকে তার শাসন-শোষণের জোয়ালের নিচে আনতে বলপ্রয়োগ করছে। বৃহত হিঁদু জাতিদম্ভবাদের লক্ষ্য হচ্ছে জাতিগত ও ধর্মীয়  সংখ্যালঘুদের ওপর অভ্যন্তরীণ নির্যাতন বৃদ্ধি করা। বড় সাম্রাজ্যবাদী শক্তির অনুগত থেকে এইভাবে ভারতীয় সম্প্রসারণবাদ দক্ষিণ এশিয়ার সকল জাতি ও জনগণের ওপর নির্যাতনকারী সবচেয়ে আধিপত্যবাদী প্রতিক্রিয়াশীল আঞ্চলিক শক্তিতে পরিণত হয়েছে। অতীতে কয়েক দশক ধরে ভারত সোভিয়েত সামাজিক সাম্রাজ্যবাদের সহায়তায় এই অপকর্মটি করছিল এবং এখন বিশ্ব সাম্রাজ্যবাদ, প্রধানত মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের সমর্থনে এটি চালিয়ে যাচ্ছে।
ভারত মহাসাগরে নজরদারি বৃদ্ধির ভারতীয় উদ্যোগের খবর গত ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৩ টাইমস অফ ইন্ডিয়া প্রচার করে যাতে এই মানচিত্রের এলাকাগুলোতে প্রভাব বৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে।

No comments:

Post a Comment