Monday, May 19, 2014

ভি. আই. লেনিনের “কমিউনিজমে ‘বামপন্থা’র শিশু রোগ” বইয়ের মূল বিষয়



"কমিউনিজমে 'বামপন্থা'র শিশুরোগ" গ্রন্থের প্রথম ইংরেজি সংস্করণের প্রচ্ছদ
“কমিউনিজমে ‘বামপন্থা’র শিশু রোগ”, ইংরেজিতে: "Left-Wing" Communism: An Infantile Disorder হচ্ছে ১৯২০ সালে ভ্লাদিমির লেনিন লিখিত বই যেখানে তিনি বলশেভিক পার্টির সৃষ্টি, বিকাশ, সংগ্রাম ও বিজয়ের ইতিহাস তুলে ধরেন। এই বইটি মূলত তিনি লেখেন বিভিন্ন দেশের নবীন কমিউনিস্ট পার্টিগুলোর কাছে রুশ কমিউনিস্টদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরার জন্য। এই বইয়ে লেনিন বলশেভিকবাদের বিবিধ প্রকার সমালোচনাকারীদের জবাব দেন যে সমালোচনাকারীরা তাদের অবস্থানকে বাম দিকে দাবী করে আসছিলেন। পরে এই সমালোচনাকারীদের অধিকাংশই মতাদর্শের প্রস্তাবক হিসেবে বাম সাম্যবাদী নামে বর্ণিত হয়েছিলেন।
এই গ্রন্থে তিনি জানালেন কীভাবে বলশেভিক পার্টি বেড়ে উঠল, জোরদার হলও, কীভাবে এবং কেন এ-পার্টি জয় করতে পারল বাধাবিঘ্ন, এবং সেই পার্টির বহু বছরের অভিজ্ঞতা থেকে অন্যান্য কমিউনিস্ট পার্টি কী শিক্ষা পেতে পারে। ১৯০৩ থেকে ১৯১৭ সাল পর্যন্ত বলশেভিকবাদের ব্যবহারিক কাজের ইতিহাস সম্পর্কে বলতে গিয়ে লেনিন এই গ্রন্থে বলছেন,
... এই ১৫ বছরে বিশ্বের কোনো একটা দেশও বিপ্লবী পরীক্ষার দিক থেকে, বৈধ ও অবৈধ, শান্ত ও ঝোড়ো, গোপন ও প্রকাশ্য, চক্রনির্ভর ও গণনির্ভর, পার্লামেন্টারি ও সহিংস আন্দোলনের রূপ বদলের দ্রুততা ও বৈচিত্র্যের দিক থেকে এতোখানি অভিজ্ঞতার ধারে কাছেও যায়নি। কোনো একটা দেশেও এত সংক্ষিপ্ত পর্বকালের মধ্যে আধুনিক সমাজের সমস্ত শ্রেণিসংগ্রামের রূপ, রূপভেদ ও পদ্ধতির এমন সমৃদ্ধি পুঞ্জীভূত হয়নি।
এই বইতে লেনিন লিখলেন বলশেভিক পার্টি বেড়ে উঠেছে ও জোরদার হয়েছে সুবিধাবাদী, মেনশেভিক, সোশ্যালিস্ট-রেভলিউশানারি এবং শ্রমিক শ্রেণি ও মার্কসবাদের অন্যান্য শত্রুদের বিরুদ্ধে সংগ্রামের মধ্য দিয়ে। প্রচণ্ড বাধাবিঘ্ন সে জয় করেছে তার সদস্যদের লৌহ শৃঙ্খলার, জনগণের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের বদৌলতে এবং জয় করেছে এজন্য যে তা সর্বদা পরিচালিত হয়েছে মার্কসবাদের তত্ত্বে। দক্ষিণপন্থি সুবিধাবাদকে প্রধান বিপদ বলে গণ্য করার সাথে সাথে তিনি বিভিন্ন কমিউনিস্ট পার্টির ‘বামপন্থী’ কর্মীদের ভুলের কঠোর সমালোচনা করেন এই বলে যে জনগণ প্রসঙ্গে কমিউনিস্ট পার্টির ভূমিকা ও কর্তব্য এরা সঠিক বোঝেনি, বুর্জোয়া সংসদ ও ট্রেড ইউনিয়নে কাজ করতে অস্বীকার করছিল তারা, অন্যান্য পার্টির সংগে আপোষ ও সমঝোতার সম্ভাবনা মানছিল না। বিপ্লবী কাজের বদলে তারা আনছিল বিপ্লবী বুলি। শ্রমিক শ্রেণির স্বার্থের পক্ষে, সমগ্র বিশ্ব কমিউনিস্ট আন্দোলনের পক্ষে এটা ছিল ক্ষতিকর ও বিপদজনক, তার পরিণতি হচ্ছিল জনগণের সংগে পার্টির সম্পর্কচ্ছেদ। বিশ্ব প্রলেতারিয়েতের নেতা লেনিন বললেন, যেখানেই জনগণ সেখানেই কাজ করতে হবে কমিউনিস্টদের। নমনীয় রণকৌশলের শিক্ষা দিলেন লেনিন, প্রত্যক্ষ কর্তব্যের ক্ষেত্রে সাধারণ সত্যের বুলিবাগীশ গৎবাঁধা প্রয়োগের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিলেন। সেইসংগে তিনি বললেন যে, কোনো দেশের বৈশিষ্ট্যসূচক কোনো সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে মুহূর্তের জন্যও সাম্রাজ্যবাদীদের ক্ষমতা উচ্ছেদ এবং সমাজতন্ত্র ও কমিউনিজম নির্মাণের মূল আন্তর্জাতিক কর্মটি ভোলা চলবে না। লেনিনের এই রচনাটির সাহায্যে কমিউনিস্ট পার্টিগুলি তাদের ভুল শোধরাতে পারে, আরো সাফল্যের সংগে সংগ্রাম চালাতে পারে শ্রমিক শ্রেণির শত্রুদের সংগে, হয়ে উঠতে পারে জনগণকে সংগে টানতে সমর্থ পোক্ত মার্কসবাদী পার্টি। অর্থাৎ রুশদেশে লেনিনের বিপ্লবী নীতি ও কৌশলের নানা রূপ এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কমিউনিস্ট পার্টির কর্তব্যের নানা দিক ব্যাখ্যাত হয় এই গ্রন্থে। লেনিনবাদি কৌশল বলতে আজ আমরা যা বুঝি তার রূপ রয়েছে এই বইতে।

 

তথ্যসূত্র:

১. গ. দ. অবিচকিন ও অন্যান্য; ভ্লাদিমির ইলিচ লেনিন, সংক্ষিপ্ত জীবনী; প্রগতি প্রকাশন, মস্কো, ১৯৭১; পৃষ্ঠা-২১০-২১২।

২. ভি. আই. লেনিন; কমিউনিজমে বামপন্থার শিশুরোগ বই থেকে।

No comments:

Post a Comment