Sunday, June 01, 2014

বাংলা নীলকণ্ঠ বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি



বাংলা নীলকান্ত, চিত্রগ্রাহক: রেজাউল হাফিজ রাহী
দ্বিপদ নাম: Coracias benghalensis
সমনাম: Corvus benghalensis Linnaeus, 1758
বাংলা নাম: বাংলা নীলকণ্ঠ, নীলকণ্ঠ (আই)
ইংরেজি নাম: Indian Roller.

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য Kingdom: Animalia
বিভাগ/Phylum: Chordata
শ্রেণী/Class: Aves
পরিবার/Family: Coraiidae
গণ/Genus: Coracias, Linnaeus, 1758;
প্রজাতি/Species: Coracias benghalensis (Linnaeus, 1758)
ভূমিকা: বাংলাদেশের পাখির তালিকাCoracias গণে বাংলাদেশে রয়েছে এর ১টি প্রজাতি এবং পৃথিবীতে ৮টি প্রজাতি। বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রজাতিটি হচ্ছে আমাদের আলোচ্য বাংলা নীলকণ্ঠ
বর্ণনা: বাংলা নীলকণ্ঠ বাদামি বুক ও নীল ডানার পাখি (দৈর্ঘ্য ৩১ সেমি, ওজন ১৬৫ গ্রাম, ডানা ১৯ সেমি, ঠোঁট ৩.৫ সেমি, পা ২.৭ সেমি, লেজ ১৩ সেমি)বসে থাকা অবস্থায় এর পিঠ লালচে বাদামি; ওড়ে গেলে ডানার নীল রঙ দেখা যায়; ডানায় পর্যায়ক্রমে ফ্যাকাসে নীল ও কালচে নীল পালক রয়েছে; গলাবন্ধ, ঘাড়ের পিছনের ভাগ, গলা ও বুক লালচে-বাদামি; কাঁধ-ঢাকনি ও ডানার গোড়ার পালক বাদামি জলপাই-সবুজ; তলপেট ও অবসারণী ফ্যাকাসে নীল এবং লেজ গাঢ় নীলএর চোখ বাদামি; ঠোঁট বাদামি-কালো; পা ও পায়ের সঙ্গে সংযুক্ত অঙ্গ হলদে-বাদামিছেলেমেয়েপাখির চেহারা অভিন্নঅপ্রাপ্তবয়স্ক পাখি অনুজ্জ্বল; কাঁধ-ঢাকনি মেটে বাদামি এবং গলা ও বুকে ডোরা রয়েছে৩টি উপ-প্রজাতির মধ্যে C. b. benghalensis এবং সম্ভবত C. b. affinis বাংলাদেশে পাওয়া যায়
স্বভাব: বাংলা নীলকণ্ঠ পাতাঝরা বন, বনের প্রান্তদেশ, তৃণভূমি, ক্ষুদ্র ঝোপ, খামার ও গ্রামাঞ্চল বিচরণ করে; পাতাহীন ডাল, বেড়ার বাঁশ অথবা বৈদ্যুতিক তারে একাকী বসে থাকেনীরবে বসে এরা ধীরে লেজ ওপর-নিচে দোলায় ও নিচের ভূমিতে শিকার খোঁজে; আহার্যতালিকায় রয়েছে পোকামাকড়, টিকটিকি, ব্যাঙ ও সাপঘাসে বা ঝোপে আগুন দেওয়া হলে পোকা ধরার জন্য এরা পাশে বসে অপেক্ষা করেএপ্রিল-মে মাসের প্রজনন ঋতুতে এরা উঁচু গলায় ও তীক্ষ্ণ সুরে ডাকে: ক্রাক.. ক্রাক..; ছেলে মেয়ে সমবেত ওড়ার মহড়া দেয়; এবং গাছের কোটরে অথবা দালানকোঠার ফাঁক-ফোঁকরে ঘাস ও খড়কুটো দিয়ে বাসা বেঁধে ডিম পাড়েডিমের সংখ্যা ৩-৫টি, মাপ ৩.৮×২.৮ সেমি১৭-১৯ দিনে ডিম ফোটে; ২০-২৫ দিনে ছানার গায়ে ওড়ার পালক গজায়
বিস্তৃতি: বাংলা নীলকণ্ঠ বাংলাদেশের দুর্লভ আবাসিক পাখি; সকল বিভাগের গ্রামাঞ্চলে বিচরণ করেপারস্য উপসাগর থেকে পুরো ভারত উপমহাদেশ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে সুদূর চীন ও মালয়েশিয়া পর্যন্ত এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি রয়েছে
অবস্থা: বাংলা নীলকান্ত বিশ্বে ও বাংলাদেশে বিপদমুক্ত বলে বিবেচিতবাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতি সংরক্ষিত
বিবিধ: বাংলা নীলকণ্ঠের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ বাংলার তাউরা ( গ্রীক: Korakias = তাউরা, bengalensis = বাংলার)
বাংলাদেশ উদ্ভিদ প্রাণী জ্ঞানকোষে এই নিবন্ধটির লেখক ইনাম আল হক ও সুপ্রিয় চাকমা

আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা 

. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

৩. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

No comments:

Post a Comment