Saturday, August 02, 2014

কার্ল মার্কসের পুঁজি বা ডাস কাপিটাল গ্রন্থের আলোচনা



কার্ল মার্কসের পুঁজি গ্রন্থের প্রচ্ছদ

পুঁজি বা ডাস কাপিটাল (জার্মান Das Kapital; ইংরেজি Capital; বাংলা পুঁজি) কার্ল মার্কসের লেখা পুঁজিবাদের সমালোচনামূলক একটি বই। এই বই সমাজপ্রগতি সম্বন্ধে তৎকালীন প্রচলিত অভিমতে বিপ্লব ঘটিয়েছিল এবং অর্থনীতিকে এক বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তির উপরে স্থাপন করেছিল। দার্শনিক ও ঐতিহাসিক রচনা হওয়ার সাথে সাথে এই গ্রন্থ মুখ্যত অর্থনৈতিক তত্ত্ব নিরূপণের দিকে, পুঁজিবাদী বিকাশের অর্থনৈতিক নিয়ম_ উদ্বৃত্ত-মূল্যের (theory of surplus value) নিয়ম আবিষ্কারের দিকে নিয়োজিত হয়েছিল।  
পুঁজিবাদের অর্থনৈতিক সম্পর্কগুলি, তার দুই বিপরীত প্রধান শ্রেণি প্রলেতারিয়েত ও বুর্জোয়ার অভ্যন্তরীণ বৈরিতা, পুঁজিপতিদের স্বার্থ সুরক্ষাকারী বুর্জোয়া রাজনৈতিক উপরিকাঠামো, মুক্তি ও সমতা সম্পর্কিত বুর্জোয়া ধ্যানধারণা এবং বুর্জোয়া পরিবার ও দৈনন্দিন অন্যান্য দিক সমেত এক জীবন্ত সামাজিক অর্থনৈতিক গঠনরূপ হিসেবে পুঁজিবাদ সম্বন্ধীয় এক সামগ্রিক অনুসন্ধান চালান কার্ল মার্কস এই সত্যিকারের বিশ্বকোষসুলভ মহাগ্রন্থে।[১]
পুঁজি গ্রন্থের প্রথম খণ্ডে মার্কস পুঁজিবাদী সমাজে উৎপাদন প্রণালীর বিশ্লেষণ করেছেন। এই সমাজে বাজারে বিক্রয়ার্থ পণ্যদ্রব্যের দুটি চেহারা দেখতে পাওয়া যায়। একটিতে তার ব্যবহারিক মূল্য প্রকাশ পায়, অপরটিতে বিনিময় মূল্য।
পুঁজি গ্রন্থের দ্বিতীয় খণ্ডের উপনাম পুঁজির সঞ্চালন প্রক্রিয়া এখানে মার্কস পুঁজিবাদী অর্থনীতিতে পুঁজির গতিবিধি, আবর্তন, নিয়োজিত পুঁজির পণ্যে রূপান্তর ও পরিশেষে বাজার-পদ্ধতির মধ্যে বিনিময় ব্যবস্থায় বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন ও মূল্যমানের মধ্যে ভারসাম্য-অবস্থায় সরল পুনরুৎপাদন পদ্ধতির প্রচলন, ইত্যাদি বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেছেন।
পুঁজি গ্রন্থের ৩য় খন্ডটির উপনাম ধনতান্ত্রিক উৎপাদন ব্যবস্থার সামগ্রিক চিত্র (The Process of capitalist production as a whole) এখানে মার্কস বিশেষ বিশেষ মূল্যমানের প্রশ্ন, পুঁজির মুনাফার হার ও উদ্বৃত্ত মূল্যের বিভাজন থেকে প্রাপ্ত মুনাফার কথা বলেছেন। মার্কস দেখিয়েছেন, পণ্যোৎপাদনে পুঁজির মালিকের ব্যয়ের পরিমাণ ও পণ্যের যথার্থ উৎপাদন ব্যয় সমান নয়।[২]
পুঁজি গ্রন্থের তিনটি খণ্ডের প্রতিটি, সেগুলোর প্রতিটি অধ্যায় ও পরিচ্ছেদ হলও পুঁজিবাদী উৎপাদন-সম্পর্কের অন্তঃসার সম্বন্ধে, ঐতিহাসিকভাবে সেই সম্পর্কের ক্ষণস্থায়ী চরিত্র সম্বন্ধে বোধের ক্ষেত্রে সরল থেকে জটিলে, নিম্নতর থেকে উচ্চতরে আরোহণের একটি পর্যায়। মার্কস পুঁজিবাদী উৎপাদন সম্পর্কের গোটা ব্যবস্থাটার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নির্দেশ করেছেন এবং পুঁজিবাদকে সর্বপ্রকারে পরীক্ষা করেছেন একটা জীবন্ত সামাজিক-অর্থনৈতিক গঠনরূপ হিসেবে।[৩]
প্রথম যে বিদেশি ভাষায় ‘পুঁজি’ অনূদিত হয়েছিল, ১৮৭২ সালে, তা ছিল রুশ ভাষা। মার্কসবাদী অর্থনৈতিক তত্ত্ব রাশিয়ায় উর্বর জমির উপর পড়েছিল, দ্রুত শিকড় চালিয়ে দিয়েছিল গভীরে এবং অঙ্কুরিত হয়ে পরিণত হয়েছিল এক মহাবৃক্ষে।[৪]

তথ্যসূত্র:
১. স. ইলিন ও আ. মাতিলেভ; অর্থশাস্ত্র কী, প্রগতি প্রকাশন, মস্কো; ১৯৮৮; পৃষ্ঠা- ১১৭-১৮।
২. বাংলা উইকিপিডিয়া,
৩. স. ইলিন ও আ. মাতিলেভ; অর্থশাস্ত্র কী, প্রগতি প্রকাশন, মস্কো; ১৯৮৮; পৃষ্ঠা- ৮৩।
৪. স. ইলিন ও আ. মাতিলেভ; অর্থশাস্ত্র কী, প্রগতি প্রকাশন, মস্কো; ১৯৮৮; পৃষ্ঠা- ১২০।

No comments:

Post a Comment