Friday, January 09, 2015

বাংলা ঢোলপাতা বাংলাদেশ ও এশিয়ার ভেষজ গুল্ম




বাংলা ঢোলপাতা বা কানশিরের ফুল ও পাতা

বৈজ্ঞানিক নাম: Commelina benghalensis  
সমনাম Commelina kilimandscharica, Commelina obscura, Commelina pyrrhoblepharis, Commelina rufociliata, Commelina uncata.
বাংলা নাম: বাংলা ঢোলপাতা বা কানশিরে বা কানাইবাঁশি

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae - Plants
অবিন্যসিত: Angiosperms
অবিন্যসিত: Monocots
অবিন্যসিত: Commelinids
বর্গ: Commelinales
পরিবার: Commelinaceae

গণ: Commelina
প্রজাতি: Commelina benghalensis C. Linnaeus
পরিচিতি: বাংলা ঢোলপাতা বা দেশি কানশিরে বা কানছিঁড়ে বা কানাইবাঁশি হচ্ছে উষ্ণমণ্ডলীয় এশিয়া ও আফ্রিকার উদ্ভিদ। এরা বহুবর্ষজীবী এবং ব্যাপক ভাবে তার আদি বাস ছেড়ে হাওয়াই, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নর্থ আমেরিকাতে বিস্তার লাভ করেছেএই উদ্ভিদে নীল বর্ণের তিন পাপড়ির ফুল ফোটে। এদের পাতা লম্বাটে এবং পাতায় হুল থাকে। বসন্তের শুরুতে ফুল আসে যা শেষ অব্দি থাকে
ব্যবহার: এই গুল্ম লতাটির বিশেষ ঔষধি গুণ আছে। চায়নাতে একে ভেষজ ঔষধ হিসাবে ব্যবহার করা হয়। এটি Diuretic, febrifuge and anti-inflamatory হিসাবে কাজ করেএর এলকালয়েড মানুষের জন্য উপকারি ইহা ল্যাক্সেটিভ, স্কিনের ইনফ্লামেশান সারাতে ও কুস্ট রোগে ব্যবহার হয়কারও হাত-পা কেটে গেলে সাথে সাথে এই লতার ডগা ভেঙে পানির মত যে রস বা আঠা পাওয়া যাবে তা কাটা স্থানে লাগিয়ে দিলে এক মিনিটের মধ্যে কাটা স্থান জোড়া লেগে যায়। গ্লু এবং এন্টিসেপ্টিক হিসেবে কাজ করে। এর পাতা পিষে আগুনে পোড়া অংশে প্রলেপ দিলে চমৎকার ফলাফল পাওয়া যায় এর মূলের রস বদহজমের জন্য খুবই উপকারীকানের ইনফেকশনে এবং ব্যথায় এর দুফোটা রস কানে দিলেই উপকার বোঝা যায়। শৈশবে চোখে অঞ্জন হলে এই গাছের লতা টিপে রস লাগিয়ে দিলে দুদিনেই সেরে যায়।


পাকিস্তানিরা একে পশু খাদ্য ও সবজি হিসেবে ভক্ষণ করে থাকে নেপালীয় জনগণ এর কচি পাতা সবজি হিসেবে ভক্ষণ করে ইন্ডিয়াতে আকালের খাবার হিসাবে এর কদর অনেক

আরো পড়ুন:

. বাংলাদেশের ঔষধি উদ্ভিদের একটি বিস্তারিত পাঠ

. বাংলাদেশের পাখির তালিকা 

৪. বাংলাদেশের স্তন্যপায়ী প্রাণীর তালিকা

No comments:

Post a Comment

জনপ্রিয় দশটি লেখা, গত সাত দিনের

Recommended