Wednesday, July 31, 2013

তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা




তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা.......

চিংকাং পাহাড়ের অগ্নিশিখা, দিয়েছে হানা

তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা.......

বুকে আছে হিম্মত পেটে নেই দানা

তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা.......

হাতে হাতে রাইফেল আছে নিশানা

তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানা.......

____হেমাঙ্গ বিশ্বাস

গানটি শুনুন ইউটিউব থেকে। লিংক 

Friday, July 19, 2013

পাথরের ফুল - সুভাষ মুখোপাধ্যায়




ফুলগুলো সরিয়ে নাও,
আমার লাগছে।
মালা
জমে জমে পাহাড় হয়,
ফুল
জমতে জমতে পাথর।

পাথরটা সরিয়ে নাও,
আমার লাগছে

এখন আর
আমি সেই দশাসই জোয়ান নই
রোদ না, জল না, হাওয়া না--
শরীরে আর
কিছুই সয় না

মনে রেখো
এখন আমি মা-আদুরে ছেলে--
একটতেই গলে যাবো

যাবো বলে
সেই কোন সকালে বেরিয়েছি--
উঠতে উঠতে সন্ধে হল
রাস্তায়
আর কেন আমায় দাঁড় করাও?

অনেকক্ষথেমে থাকার পর
গাড়ি এখন ঢিকিয়ে ঢিকিয়ে চলছে।
মোড়ে
ফুলের দোকানে ভিড়।
লোকটা আজ কার মুখ দেখে উঠেছিল?

.

ঠিক যা ভেবেছিলাম
হুবহু মিলে গেল।
সেই ধূপ, সেই ধুনো, সেই মালা, সেই মিছিল--
রাত পোহালে
    সভা-টভাও হবে।
(
একমাত্র ফুলের গলা-জড়ানো কাগজে লেখা
নামগুলো বাদে)
সমস্তই হুবহু মিলে গেল।
মনগুলো এখন নরম--
এবং এই হচ্ছে সময়।
হাত একটু বাড়াতে পারলেই
ঘাট-খরচাটা উঠে আসবে।

এককোণে ছেঁড়া জামা পরে
শুকনো চোখে
দাঁতে দাঁত দিয়ে

ছেলেটা আমার
পুঁটুলি পাকিয়ে ব'সে।
বোকা ছেলে আমার,
ছি ছি, এই তুই বীরপুরুষ?
শীতের তো সবে শুরু--
এখনই কি কাঁপলে আমাদের চলে?

ফুলগুলো সরিয়ে নাও,
আমার লাগছে।
মালা জমে জমে পাহাড় হয়
ফুল জমতে পাথর।

পাথরটা সরিয়ে নাও,
আমার লাগছে।

.

ফুলকে দিয়ে
মানুষ বড় বেশি মিথ্যে বলায় বলেই
ফুলের ওপর কোনোদিনই আমার টান নেই।
তার চেয়ে আমার পছন্দ
আগুনের ফুলকি
যা দিয়ে কোনোদিন কারো মুখোশ হয় না।

ঠিক এমনটাই যে হবে,
আমি জানতাম।
ভালোবাসার ফেনাগুলো একদিন উথলে উঠবে
এ আমি জানতাম।
যে-বুকের
যে আধারেই ভরে রাখি না কেন
ভালোবাসাগুলো আমার
আমারই থাকবে।

রাতের পর রাত আমি জেগে থেকে দেখেছি
কতক্ষণে কিভাবে সকাল হয়;
আমার দিনমান গেছে
অন্ধকারের রহস্য ভেদ করতে।
আমি এক দিন, এক মুহূর্তের জন্যেও
থামি নি।
জীবন থেকে রস নিংড়ে নিয়ে
বুকের ঘটে ঘটে আমি ঢেলে রেখেছিলাম
আজ তা উথলে উঠল।

না।
আমি আর শুধু কথায় তুষ্ট নই;
যেখান থেকে সমস্ত কথা উঠে আসে
যেখানে যায়--
কথার সেই সে
নামের সেই পরিণামে,
ল-মাটি-হাওয়ায়
আমি নিজেকে মিশিয়ে দিতে চাই।

কাঁধ বদল করো।
এবার
স্তুপাকার কাঠ আমাকে নিক।
আগুনের একটি রমণীয় ফুলকি
আমাকে ফুলের সমস্ত ব্যথা
ভুলিয়ে দিক।।

Monday, July 01, 2013

বাংলা গানে সাঁওতালি সুর


'তু কেনে কাদা দিলি সাদা কাপড়ে' গানের নাচে শিল্পীরা


সাঁওতালি সুরে বাংলা ভাষায় অনেক গান লেখা হয়েছে। সেখান থেকে আমার পছন্দের গানের একটি তালিকা দেয়া হলো। আপনারা আমাকে সাহায্য করে গানের তালিকাটিকে আরো সমৃদ্ধ করলে অনেক খুশি হবো।

০১. কালো জলে কুচলা তলে, ডুবলো সনাতন; আজ সারা না কাল সারা না পাই যে দরশন,
০২. ফুল গাছটি লাগইছিলাম ধুলা মাটি দিয়ারে, সেফুলো ফুটিয়া রইলো অগম দইরার মাজারে,
০৩. একদিন কার হলুদ বাঁটো তিন দিনকার বাসি, চৌদ্দলং চৌদ্দলং ফুরায় গেল হে, 

০৪. রাঙামাটির পথে লো, মাদল বাজে বাজে বাঁশের বাঁশী,
০৫. হলুদ গাঁদার ফুল, রাঙা পলাশ ফুল, এনে দে এনে দে নইলে বাঁধব না বাঁধব না চুল,
০৬. চুড়ির তালে নুড়ির মালা রিনিঝিনি বাজে লো, খোঁপায় দোলে বনফুলের কুঁড়ি,

০৭. আমার দুর্যোধনে বিদায় দিব কেমনে, মাসাবধি দুর্যোধনকে পুঁজেছি যতনে, দুর্যোধনে,  
০৮. আগা ডালে বোসো কোকিল মাঝ ডালে বাসারে, ভাঙিল বৃক্ষের ডাল জীবনে নাই আশারে,
০৯. দালান দিলি মহল দিলি বাড়ির নিচে পুষ্করিণী, একখানা পানসী দিতে পারনি,
১০. কৃষ্ণ কালার কী রূপ রাধা পাগল হলো, কালো রূপ কী দেখেসে প্রেমেতে মজিল,
১১. আমার ঘরকে ভাদু এলেন কোত্থ্যাকে বসাবো, পিয়াল গাছের তলায় আসন সাজাবো,
১২. চাঁদ উঠেছে ঐ, ফুল ফুটেছে ঐ, সোনার মেয়ে নাচো দেখি মাথার চুল খুলে,
১৩. ইচ্ছেমতোন রোদ জ্বলে যায়, ইচ্ছেমতোন জলের কণা মেঘ, ... ইচ্ছেমতোন ঘুরি  

১৪. তু রাঙামাটির দেশে যা, লাল পাহাড়ির দেশে যা, হেথাক তোকে মানাইছে নারে,
. ঝিঙ্গাফুলি সাজেতে পেয়ে পথের মাঝেতে, তু কেনে কাদা দিলি সাদা কাপড়ে,     
১৬. আজ গানের তালে হৃদয় দোলে মিঠে বাতাস যাইরে বয়, হলুদ ধানের দোদুল দোলায়,
১৭. বিহুরে লগন মধুরে লগন, আকাশে বাতাসে লাগিল রে, চম্পা ফুটিছে চামেলি ফুটিছে, 
১৮. দোল দোল দুলুনি, রাঙা মাথার চিরনি, এনে দেব হাট থেকে মান তুমি করোনা,
১৯. ও মনরে.. , সাঁওতাল করেছে ভগবানরে, সাঁওতাল করেছে ভগবান,
২০. ইটা তুর কেমুন ... ছলনা, ও মেঘের বউ চাঁদ,
. ময়না ছলা ছলা চলে রে, পেছন পানে চাইনা রে, মন ধুকপুক ধুকপুক করে রে,
২২. হুররর তাং তাং, ধনুকে জোর দেরে টান, টানা বাবা টানা, ফিরিঙ্গি দেয় হানা,
২৩. ভাদর আশ্বিন মাসে ভ্রমর বসে কাঁচা বাঁশে, ...  আর না থাকিও বাপের ঘরেতে, ও বধূ হে,
২৪. ফাগুনেরো মোহনায়, মন মাতানো মহুয়ায়, রঙ্গিণী বিভুর নেশা কোন আকাশে নিয়ে যায়,
২৫. আজ জীবন খুঁজে পাবি, ছুটে ছুটে আয়, মরণ ভুলে গিয়ে ছুটে ছুটে আয়,
২৬. আমি যদি তুমার হতাম...... খোঁপায় তোমার গুঁজে দিতাম শাল বনের ফুল লো,
২৭. সাইরন বাজলো অপিসেতে লো, উঠলো মিনির মা কামে যেতে হবে, (দোহার)

১-৩ নং গান উত্তরা সিনেমায় ব্যবহৃত-৬ নজরুল সঙ্গীত৭-১২ নং শিল্পী কৃষ্ণকলি তার বুনোফুল এবং ১৩ নং গানটি সূর্যে বাসি বাঁধা এলবামে গেয়েছেন বাকিগুলা এখানে-ওখানে শোনা

জনপ্রিয় দশটি লেখা, গত সাত দিনের